rokomari.com
16 January 2019 at 7:00 AM
(rokomari.com)

সাম্প্রতিক সময়ে ইসলামি বই কেন বেস্টসেলার?


হ্যাঁ, অনেকের মনেই এই প্রশ্নটা দিন দিন দানা বেঁধে উঠছে। ইসলামি বইয়ের নবজাগরণের সূত্রপাত হল কীভাবে আবার? কী কারণে ইসলামি ঘরানার বইগুলোর দিকে পাঠক ঝুঁকছে আবারও। উপন্যাস, সায়েন্স ফিকশনের বিক্রি কমছে না যদিও কিন্তু ইসলামি বইয়ের মতো বিক্রি বাড়ছে না আর কোন জনারের বইতেই। শুধু অনলাইন ভিত্তিক ই-কমার্সের সেলস ডাটানুসারে না বরং বাজার ঘুরেও একই চিত্র দেখা গিয়েছে। হু হু করে বাড়ছে ইসলামি ঘরানার বইগুলোর বিক্রি। রকমারির নিজস্ব ডাটা থেকেই যদি বলি তবে...- ২০১৬ তে ইসলামি বই বিক্রি হয়েছে রকমারি ডট কমে সাকুল্যে ২৫ হাজার কপি প্রায়, যেটি ২০১৭ তে গিয়ে বেড়ে হয়েছে ৫৩ হাজার কপি ও ২০১৮ তে এখন পর্যন্ত ইসলামি বই বিক্রি হয়েছে ৮০ হাজার কপির মতো। অবিশ্বাস্য!



সুতরাং ২০১৬ থেকে ২০১৮ তে বইয়ের সংখ্যার দিক দিয়ে ইসলামি বইয়ের বিক্রি বেড়েছে ২৩৩% ও সেলসের দিক দিয়ে বইয়ের বিক্রি বেড়েছে ২১৪%।


এমন অবিশ্বাস্য রকমের বৃদ্ধি সম্ভব হয়েছে ইসলামি ঘরানার বইগুলোতে কন্টেন্ট নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করার কারণেই। ইসলামি বইয়ের লেখকরা আধুনিক সময়ের সাথে মেলাতে চেষ্টা করেছেন ইসলামি দৃষ্টিভঙ্গিকে। ইসলামি সাহিত্যেও এসেছে আধুনিক পাঠকের দৈনন্দিন জীবনের নানান অনুষঙ্গ। বিগত কয়েক বছরের বেস্টসেলার বইগুলোর কন্টেন্ট পর্যালোচনা করলেই দেখা যাবে এর সত্যতা।


‘প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ’এ পাঠক একটা চরিত্রকে পেয়েছে যার সাথে সে নিজেকে রিলেট করতে পেরেছে। এমন চরিত্র স্ট্যাবলিশ করে তার বোধোদয় পাঠকের কাছেও তাকে প্রিয় করে তোলে। ক্যারেক্টারাইজেশন নিয়ে আধুনিক লেখকরা যেমন খেলা করে তেমনি আরিফ আজাদও এই প্যাটার্নটি সহজেই ধরতে পেরেছেন এই বইতে। আর তার ফলেই বিগত কয়েক বছরের মাঝে সবচেয়ে বেশি বিক্রিত বইয়ের তালিকায় শীর্ষে আছে প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ। ‘বি স্মার্ট উইথ মুহম্মদ’ বইটির নামের মাঝেই লুকিয়ে আছে এর সাফল্যের কথকতা। মহানবী (সঃ) এর জীবনাদর্শ যে আধুনিক জীবনেও কতোটা অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় হতে পারে সেটির গল্পই ঘরোয়া ভাষায় বলে গেছেন লেখক। আর তাই পাঠকেরও হৃদয় কাড়তে সক্ষম হয়েছে এই বইটি। ‘ডাবল স্ট্যান্ডার্ড’ এ লেখক শামসুল আরেফীন হাস্যরসের মাধ্যমে তথ্যসমৃদ্ধতায় ইসলামের নানা দিকের কথা তুলে ধরেছেন। এসব বইয়ের প্লাস পয়েন্ট হল সর্বস্তরের পাঠকই বইগুলো পড়তে ইচ্ছুক হয়, বই নিয়ে মতামত পজেটিভ-নেগেটিভ যা ই থাকুক না কেন। ‘প্রিয়তমা’ বইটিতে মহানবী (সাঃ) এর দাম্পত্যজীবনের নানা দিক উঠে এসেছে দারুণভাবে। ‘হাদীসের নামে জালিয়াতি’ বইতে প্রচলিত জাল হাদীস ও অনেক ভুল ধারণা ভেঙে দিয়েছেন লেখক যার কারণে পাঠকদের কাছে বইটি হয়ে উঠেছে অনেক প্রিয়।


অর্থাৎ, ইসলামী বই সাম্প্রতিক সময়ে বেস্ট সেলার হচ্ছে এতে অবাক হবার কিছু নেই। কারণ ইসলামি ঘরানার লেখকরা যেমন ইসলামের নানা দিকগুলো তাদের স্মার্ট লেখনী দিয়ে নতুন নতুন উপায়ে পাঠকদের সামনে নিয়ে আসছেন তেমনি পাঠকরা উৎসাহী হচ্ছে সেসকল নতুন কন্টেন্ট গ্রহণ করে নিজেদের ঈমান ও আকিদাকে আরও মজবুত করতে। এই দুইয়ের সমন্বয়েই সম্ভব হয়েছে ইসলামি বইয়ের নবজাগরণ।


সকল ইসলামি বই দেখতে ক্লিক করুন - http://bit.ly/2VWMdwy








 
Like
Comment
 

Total 0 comments


Add Comment
 
Related Post
(0 comments)

(0 comments)

(0 comments)

(0 comments)

(0 comments)

(0 comments)

Random Post